July 8, 2020

CHALAMAN

Mirsarai

রামগড়ে আধিপত্য ও মসজিদ কমিটি নিয়ে রণক্ষেত্রঃ আহত ৩

খাগড়াছড়ি ব্যুরোঃ

রামগড় পৌরসভার ১নং পৌর ওয়াডের ইসলামপুর বল্টুরামটিলা জামে মসজিদ কমিটি নিয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রসহ দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ দিকে স্থানীয়রা বলছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি সফিকুর রহমান পুরান কমিটি বিলপ্ত করা পর থেকে আধিপত্য বিস্তারের কেন্দ্র করে বেশ কয়দিন থেকে মসজিদ কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে দু’গ্রুপের এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ১নং পৌর ওয়াডের খেতে খাওয়া সাধারণ যুবকসহ উভয় গ্রুপের অন্তত ৩ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে শুরু করে দেড়টা পর্যন্ত থেমে থেমে কয়েক দফা এই সংঘর্ষ হয়। আহতের মধ্যে ১।মোঃ হাসান-(২৬) পিঃ রফিকুল ইসলাম, ২। আনোয়ার হোসেন-(৩০) পিঃ ইব্রাহীম, ৩। সাখাওয়াত হোসেন-(১৮) পিঃ লকিয়ত উল্ল্যাহ উভয়ে ইসলামপুর বল্টুরামটিলা এলাকার বাসিন্দা । আহত ৩ জনকে উদ্ধার করে রামগড় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতদের মধ্যে সাখাওয়াত হোসেন (সাগর)কে আশংখাজনক হওয়ায় চট্রগ্রাম মেডিকেল হাসপালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে যানান কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ আনোয়ার হোসেন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১৪ জুন এলাকায় থমথম বিরাজ করছে। রাতেদিনে নেতাকর্মীদের এলাকার রাস্তায় মহরা দিতে দেখা গেছে।

এদিকে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন ও এলাকার আবদুল হক গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনার মধ্যদিয়ে রক্তক্ষয়ী সংর্ঘষ সৃষ্টি হয়। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন জানান- তাকে বিভিন্ন সময়ে তার সুনামক্ষুন্ন করতে একপক্ষ বিরোধীতা করে চলেছে। এসময় তার সমর্থকসহ নিজস্ব কার্যালয় বিপক্ষদলের লোকজন ভাংচুর করে। মসজিদ কমিটির সুরাহা জন্য ইউএনও’র বরাবর বিচার চেয়ে আবেদন জমা দিয়েছি। অপরদিকে- ওয়াড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অাবদুল হকের সমর্থিত নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক এক যুবক বলেন দেলোয়ার মসজিদ কমিটিতে ২০১৩ সাল থেকে প্রভাব খাটিয়ে মসজিদ কমিটিতে সম্পাদক পদেথেকে অর্থ আর্তসাৎসহ কমিটিতে পুনরায় পদে থাকার জন্য ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে সাধারণ জনগনের মাঝে আতংক সৃষ্টি লক্ষে এলাকায় বাহিরের সন্ত্রাসী লোকজন এনে এ ধরনের ত্রাস করে যাচ্ছে। তারা আরো বলেন দেলোয়ারসহ তার ভাইয়েরা দীর্ঘদিন ধরে মাদকসহ ভারতীয় বিভিন্ন পন্য পাচার করে দিনেদিনে আংঙ্গুল ফুলের কলাগাছ হয়ে রয়েছে। এর আগে ও তার এবং তার ভাইদের হাতে মাদকসহ ভারতী পণ্য হাতে নাতে পায় আইন-শৃংখলা বাহিনী। পরে জেল হাজতে তার ভাই আটক ছিল বেশ কিছুদিন। প্রশাসনের সংশিলষ্ট কর্তৃপক্ষসহ আইন-শৃংখলা বাহিনী বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখলে আসল তথ্য বেড়িয়ে আসবে বলে জানান।

এদিকে স্হানীয় এক সাংবাদিক রামগড় হাসপাতাল থেকে বিকাল ২টায় তথ্য সংগ্রহ করে বাড়ী ফেরার সময় বল্টুরামটিলা ঘটনাস্থল নিজ এলাকায় পথে জসিম ও হানিফ ঐ সাংবাদিকের সাথে কথা বলা কালে ওয়াড কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন হঠাৎ করে চড়াও হয়ে দমকদিয়ে বলেন কোন নিউজ করা যাবে না । নিউজ করলে দেখিয়ে নেবে। এর আগেও আমার বিরুদ্ধে বহু নিউজ করেছেন বলে হুমকিদেন। পরে ঐ সাংবাদিক অন্যান্য সহকর্মী সাংবাদিকদের মাঝে বিষয়টি জানাজানি হলে প্রতিবাদের আওয়াজ উঠে। অবশেষে রামগড় উপজেলা প্রেস ক্লাবে রাত প্রায় সাড়ে ৮টায় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ফারুকসহ স্থানীয় সাংবাদিক, কয়একজন নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন ঐ সাংবাদিকের প্রতি তার ভুলের ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ভবিষ্যতে কোন সাংবাদিকে সাথে এধরনের খারাপ আচরণ করবেনা বলে জানান।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রামগড় ১নং পৌর ওয়াডের ইসলামপুর বল্টুরামটিলা জামে মসজিদের কমিটি নিয়ে বেশকদিন ধরে বর্তমান কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন গ্রুপ ও এলাকার যুবক আবদুল হক গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলছিলো। সেই সূত্র ধরে শনিবার সকাল ১১টা দিকে দেলোয়ার গ্রুপ সমর্থিত আনোয়ার হোসেন এর সাথে মোঃ মানিকের সাথে মারামারি বাঁধে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্য রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সংঘর্ষ চলাকালে উভয় গ্রুপের লোকজনই দেশীয় ধারালো দা, লাঠি, ছুরি নিয়ে একে অপরের উপর হামলা চালায়। এ সময় উভয় গ্রুপের লোকজনের মধ্যে কয়েক দফা ধাওয়া পাল্টা” ধাওয়ার ঘটনায় পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এসময় উপজেলা আ’লীগের সদস্য মুসলিমকে দেলোয়ারের লোকজন মারধর করতে দেখা গেছে। তার পরথেকে পুরো এলাকা চারদিকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিক পুলিশ এসে দু’গ্রুপের লোকজনকে ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের পরিবারগন এ প্রতিনিধিকে জানান, আহতদের সুচিকিৎসার জন্য এলাকার বাইরে আছি। মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান।

রামগড় থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সামসুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মসজিদ কমিটি নিয়ে বিরোধ থেকে বর্তমান কাউন্সিলর দেলোয়ার গ্রুপ ও আবদুল হক- গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বর্তমানে এলাকায় পুলিশ মোতায়নসহ পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

Double Categories Posts 1

Double Categories Posts 2