৩৫০ পরিবারে শান্তিনীড়ের ত্রাণ বিতরণ


নিজস্ব প্রতিনিধি:
ঈদের আনন্দ যাদের ছুঁতে পারেনা এমন দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে বরাবরের মত ত্রাণ বিতরণ করেছে মিরসরাইয়ের স্বেচ্ছাসেবী সমাজ উন্নয়ন সংস্থা শান্তিনীড়। শুক্রবার (৭ মে) সংস্থার ১১তম শান্তিনীড় ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে উপজেলার ৩৫০টি পরিবারের মাঝে খাবার সামগ্রী পৌঁছে দেয় সংস্থার স্বেচ্ছাসেবীরা।
শান্তিনীড়ের সদস্যবৃন্দ কর্তৃক তালিকাকৃত মধ্যবিত্ত, নিন্মবিত্ত, কর্মহীন ও অসহায়দের মাঝে এ ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়। সংস্থার সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দিন সোহেলের সভাপতিত্বে ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোহাম্মদ আরিফের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন কাস্টমস্ এক্সাইজ এন্ড ভ্যাট বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম চৌধুরী, ২নং হিঙ্গুলি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সোনা মিয়া, শান্তিনীড় উপদেষ্টা মীর্জা জসীম উদ্দিন, মিরসরাই এসোসিয়েশন চট্টগ্রাম এর সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম মহিউদ্দিন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর সাবেক সভাপতি আলী আহসান, মিরসরাই প্রেস কাবের সভাপতি মো. নুরুল আলম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ নিজাম উদ্দিন, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ দিদারুল আলম, সাধারণ সম্পাদক মৃদুল চন্দ্র দাশ, যুগ্ম সম্পাদক শেখ কামরুল হাসান নিজামী পলাশ, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মোঃ শওকত হোসেন, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক মোঃ ইয়াছিন শরীফ, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক মোঃ আজিম উদ্দিন, দুঃস্থ ও ত্রাণ সম্পাদক রায়হান চৌধুরী, কার্যনির্বাহি সদস্য রাজু কুমার দে, আজীবন সদস্য রাঙ্গুনিয়া ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক একরামুল হক, আজীবন সদস্য লায়ন মাঈন উদ্দিন, সিনিয়র সদস্য গিয়াস উদ্দিন, ফখরুল ইসলাম, ইসমাঈল হোসেন খোকন, আবু বক্বর সিদ্দিক রিশাত, কেপিএমজি’র সহকারী ব্যবস্থাপক মোঃ শাখাওয়াত হোসেন, সাংবাদিক নাসির উদ্দিন, শান্তিনীড় সদস্য জামাল উদ্দিন শাহীন, আখতার হোসেন, মোঃ ইদ্রিস, আবু সাইদ, মোঃ ই¯্রাফিল, শায়েস্তা খান পিয়ান।
সংস্থার সভাপতি আশরাফ উদ্দিন সোহেল জানান, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সৃষ্ট দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এ বছরের কার্যক্রম অতীব গুরুত্বপূর্ণ। শান্তিনীড়’র নিয়মিত কার্যক্রমের একটা অংশ সমাজের দুঃস্থ মানুষের মাঝে ঈদের পূর্বে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম যা বিগত ১১ বছর যাবত চলমান কিন্তু চাহিদার পরিমাণে অত্র কার্যক্রম অতীব নগণ্য। ফলশ্রুতিতে অনেক গরীব ও অসহায়দের আমাদের খালি হাতে ফিরিয়ে দিতে হয় যা দেখে আমাদের মনের গভীরে পীড়া দেয়, খুব কষ্ট হয়। বিগত বছরগুলোর ধারাবাহিকতায় এবারও আমরা উপজেলার ৩৫০টি পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে উক্ত ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করেছি। এতে শান্তিনীড়ের সকল সদস্য, উপদেষ্টামন্ডলী, পৃষ্ঠপোষক, আজীবন সদস্য এবং শুভানুধ্যায়ীদের মাধ্যমে ফান্ড সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, আমরা মনে প্রাণে বিশ্বাস করি, সমাজের দরিদ্র পীড়িত মানুষদের দুঃখ-কষ্ট লাঘবে বিত্তবানরা সকলে নিজ নিজ এলাকায় এগিয়ে আসবেন।

আরো খবর