স্কুল ছাত্রীকে উত্যক্ত করার ঘটনায় সেই তিন ছাত্রলীগ নেতাকে পদ থেকে অব্যাহতি

top Banner

মিরসরাইয়ে মেয়েকে স্কুলে দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মায়ের গতিরোধ করার ঘটনায় জড়িত থাকায় তিন ছাত্রলীগ নেতাকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মাসুদ করিম রানা নিজের ফেসবুক আইডিতে ছাত্রলীগের দলীয় প্যাডে নিজের স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছেন।

অব্যাহতি পাওয়া তিন ছাত্রলীগ নেতা হলেন মঘাদিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের গজারিয়া এলাকার মুরাদ আলী মিয়া বাড়ির ওসমান গণির ছেলে ও মঘাদিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগে সহ-সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন সাগর (২১), মহসিন আলী মেম্বার বাড়ির মো. দুধু মিয়ার ছেলে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের গণ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মো. শামছুদ্দিন প্রকাশ সালমান হোসেন (২০), নসরত আলী হাজি বাড়ীর নজরুল ইসলামের ছেলে ও ২ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিফাত হোসেন (২০)।

এ বিষয়ে মিরসরাই উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মাসুদ করিম রানা জানান, উপজেলা ছাত্রলীগের এক জরুরী সীদ্ধান্ত মোতাবেক দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে মঘাদিয়া ইউনিয়নের তিন ছাত্রলীগ নেতাকে তাদের স্ব স্ব দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, ছাত্রলীগ একটি পরিচ্ছন্ন সংগঠন। কোন অন্যায়, অপরাধকে প্রশ্রয় দেয়না।

জানা গেছে, চলতি বছরের ১২ মে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে সাধুরবাজার এলাকায় সবুজ (২১) ও শুভ (১৯) নামের দুই বখাটে মলিয়াইশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর তানিয়া (ছদ্মনাম) ছাত্রীকে জোর করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় চুল ধরে টানাটানির এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীর মাথার স্কাফ খুলে ফেলে তারা। গাড়িতে তুলতে ব্যর্থ হওয়ার পর গাড়ি দিয়ে চাপা দেয়ারও চেষ্টা করে তারা। পরে শিক্ষার্থীদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বখাটেরা গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। তখন সহপাঠিরা ওই শিক্ষার্থীকে বাড়ি নিয়ে যায়। ঘটনার দিন বিকালে মিরসরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা বেলায়েত হোসেন। অভিযোগের পর পুলিশ সবুজ নামের একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে। আরেকজন আদালতে আত্মসমর্পণ করেছিলেন। জামিনে এসে সবুজ ও শুভ দলবল নিয়ে বাড়ির আশেপাশে এসে ঘরের চালে ঢিল ছুড়ে এবং কি মেয়েকে তুলে নেওয়ারও হুমকি দেন। বখাটেদেরে ভয়ে দীর্ঘ ৪ মাস স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলো মেয়ে। এ নিয়ে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের উপর উপজেলা প্রশাসন মেয়ের বাড়িতে গিয়ে মেয়েকে আসস্ত করে আবার স্কুলে যাওয়ার জন্য।

মেয়ের বাবা বেলায়েত হোসেন বলেন, প্রশাসনের সহায়তা আমার স্ত্রী (মেয়ের মা) রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে মেয়েকে নিয়ে স্কুলে যায়। মেয়েকে স্কুলে দিয়ে বাড়ী ফেরার পথে সকাল সাড়ে ১১ টায় মঘাদিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সাধুর বাজার পুরাতন সিএনজি স্ট্যান্ডে মামলার ১নং ও ৫নং আসামীসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জন পূর্বপরিকল্পিত ভাবে আমার স্ত্রীর গতিরোধ করে ১ ও ৫ নং আসামীর বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা তুলে নেওয়ার জন্য ভয়ভীতি ও প্রানণাশের হুমকি প্রদর্শন এবং মার্ডার করলে এক মাসের মধ্যে জামিন পাওয়া যায়। তাদের বিরুদ্ধে থানায় কিংবা আদালতে মামলা করলে আমার স্ত্রীসহ আমার মেয়ে ও আমাদেরকে প্রাণে হত্যার করার হুমকি প্রদান করে।

ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে তিন ছাত্রলীগ নেতা সহ ৫জনকে আসামী করে মিরসরাই থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। রবিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে অভিযান চালিয়ে পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করে সোমবার আদালতে প্রেরণ করেন।

আরো খবর