সাত বছর পর সেমিতে চেলসি

ক্রীড়া ডেস্ক

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রতিপক্ষের মাঠে জয় বরাবরই অমূল্য। যার সুফল এবার পেলো চেলসি। প্রথম লেগে পোর্তোর মাঠ থেকে ২-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছিল থমাস টুখেলের শিষ্যরা। এই জয়ের ফলেই তারা পৌঁছে গেছে ইউরোপ সেরার আসরের সেমিফাইনালে।

মঙ্গলবার রাতে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে চেলসিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে পোর্তো। কিন্তু এতে কোনো লাভ হয়নি। দুই লেগ মিলে ২-১ গোলে এগিয়ে থাকার সুবাদে সাত বছর পর চ্যাম্পিয়নস লিগের সেরা চারের টিকিট পেয়েছে চেলসি।

চেলসির ঘরের মাঠে ম্যাচটি খুব একটা উত্তেজনা ছড়াতে পারেনি। দুই দলই যেন ভুগছিল যথাযথ আক্রমণের অভাবে। তবে চেষ্টা করে গেছে দুই দলই। কিন্তু ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিট সময়ে ফল পায়নি কেউই। অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন পোর্তোর মেহদি তারেমি। যা শুধু ব্যবধানই কমিয়েছে।

এ নিয়ে অষ্টমবারের মতো সেমিফাইনালে উঠল চেলসি। ইংল্যান্ডের যেকোনো পক্ষে এটিই সর্বোচ্চ। সেমিতে তাদের প্রতিপক্ষ হবে রিয়াল মাদ্রিদ ও লিভারপুলের মধ্যকার কোয়ার্টারজয়ী দল। প্রথম লেগ ৩-১ গোলে জিতে সে দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ।

দিনের অন্য ম্যাচে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ০-১ গোলে হেরেও সেমির টিকিট পেয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। প্রথম লেগে বায়ার্নের মাঠ থেকে ৩-২ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছিল পিএসজি।

যার ফলে দ্বিতীয় লেগে বায়ার্নের ১-০ গোলের জয়ে দুই লেগ মিলে স্কোরলাইন দাঁড়ায় ৩-৩ গোলের ড্র। কিন্তু প্রতিপক্ষের মাঠে বেশি গোল করায় সেমির টিকিট পেয়েছে মাউরিসিও পচেত্তিনোর শিষ্যরা।

আরো খবর