শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও করেন মাদক কারবার,২ কারবারি আটক

top Banner

শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়া সত্বেও দীর্ঘদিন ধরে মাদক বেচাকেনা করে আসছিলেন নুরুল আলম। অবশেষে মিরসরাইয়ে ৫০০ গ্রাম গাঁজাসহ নুরুল আলম ও সিরাজুল ইসলাম নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১০টায় উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের বদিউল্লাহ পাড়া এলাকার সাহাব উদ্দিনের দোকানের পেছনের খালি জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- মঘাদিয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বদিউল্লাহ পাড়া এলাকার হেলাল উদ্দিনের ছেলে প্রতিবন্ধী নুরুল আলম (৩৫), মিরসরাই সদর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মঠবাড়িয়া এলাকার ফিরোজ খানের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (২৬)। এ ঘটনায় মো. জুয়েল (২৪) নামে একজন পলাতক রয়েছেন।

মঘাদিয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, নুরুল আলম ছোটবেলায় দুর্ঘটনায় এক পা হারান। বিগত কয়েক বছর ধরে তিনি মাদক কারবারির সঙ্গে জড়িত। কয়েকবার জেলও খেটেছেন। কিন্তু শিক্ষা হয় না। জামিনে এসে আবারও মাদক কারবারিতে জড়িয়ে যান।

মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবির হোসেন বলেন, রোববার রাতে মঘাদিয়া ইউনিয়নের বদিউল্লাহ পাড়া এলাকার সাহাব উদ্দিনের দোকানের পেছনের খালি জায়গায় অভিযান চালিয়ে ৫০০ গ্রাম গাঁজাসহ দুইজনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক কারবারি মো. জুয়েল পালিয়ে যায়।

ওসি আরও বলেন, নুরুল আলমের বিরুদ্ধে থানায় আগের একটি মাদক মামলা রয়েছে। আগেও কয়েকবার আটক হয়েছিল। নুরুল আলম ও সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে মিরসরাই থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। সোমবার সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হয়। এছাড়া পলাতক মো. জুয়েলকে আটকের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আরো খবর