মিরসরাইয়ে লকডাউনের প্রথমদিন ১৭জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা

top Banner



মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ভয়াবহ বিস্তারের মধ্যে কঠোর লাকডাউন শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই উপজেলায় জনজীবন প্রায় স্থবির ছিল। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে কঠোর লকডাউন কার্যকর করতে মাঠে দায়িত্ব পালন করেছেন প্রশাসন। উপজেলার বিভিন্ন বাজারে গিয়ে অনুমোদনের বাইরে দোকান খোলা রাখা ও মাস্ক ব্যবহার না করায় ১৭জনকে ১৮৮০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হলে তাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ মিনহাজুর রহমান, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সুবল চাকমা, মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান ও মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টার মাঠে ছিলেন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পন্যবাহী ও ঔষুধ সরবরাহকারী গাড়ি ছাড়া অন্য গাড়ি চলতে দেখা যায়নি। উপজেলার বারইয়ারহাট পৌর বাজার, মিরসরাই সদর, আবুতোরাব, মিঠাছড়া, জোরারগঞ্জ, আবুরহাট সহ সব বাজার বন্ধ ছিল। শুধুমাত্র সরকার অনুমোদিত দোকানপাট খোলা রয়েছে।

মিরসরাই উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সুবল চাকমা বলেন, অনুমোদনের বাইরে দোকান খোলা রাখা ও মাস্ক ব্যবহার না করায় তিনি আবুতোরাব বাজার, সাধুর বাজার, বামনসুন্দরহাট, মিঠাছড়া বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ১০জনকে ১৩০০ টাকা জরিমানা করেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিনহাজুর রহমান বলেন, সরকারি নির্দেশনার বাইরে দোকান খোলা রাখা ও মাস্ক ব্যবহার না করায় ৭জনকে ৫৮০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি ওইসব ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা এবং মানুষদের মাস্ক ব্যবহার করতে সচেতন করা হয়েছে। লকডাউন চলাকালীন সময়ে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

এদিকে মিরসরাইয়ে দ্রুতগতিতে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। উপজেলার প্রায় সব এলাকায় ঘরে ঘরে জ্বর সর্দি ও কাশির রোগী রয়েছে। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার উপজেলায় করোনা পজেটিভ হয়েছে ২১ জনের। গত এক সপ্তাহে উপজেলায় ১০৯ জনের করোনা পজেটিভ হয়েছে।

আরো খবর