মিরসরাইয়ে দুই শতাধিক মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা

top Banner

মিরসরাইয়ে ২১০জন মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। উপজেলার ১নং করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়নের ব্যক্তিগত উদ্যোগে উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের এসকল মুক্তিযোদ্ধাদের বিজয়ের মাসে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ( ২৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার জোরারগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মুক্তিযুদ্ধের বিজয়মেলা মঞ্চে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী, আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়নের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, মিরসরাই পৌরসভার মেয়র গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কবির আহম্মদ, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের মহাসচিব রেজাউল করিম চৌধুরী হুমায়ুন, প্রধান সমন্বয়ক, চেয়ারম্যান রেজাউল করিম মাষ্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক নাছির উদ্দিন দিদার, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আবু তাহের, মিরসরাই পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাফর উদ্দিন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি তার বক্তব্যে বলেন, মিরসরাই উপজেলা থেকে ১৯৭১ সালে সর্বচ্চোসংখ্যক মুক্তিযোদ্ধা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন। অনেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজের জীবনবাজি রেখে সরাসরি সম্মুখযুদ্ধে অংশ নেন। পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর ক্যাম্পে জীবনবাজি রেখে গেরিলা যোদ্ধারা যুদ্ধ করেছে। অথচ যুদ্ধ পরবর্তীতে তাদের কোন খেতাব দেওয়া হয়নি। সেনাবাহিনী পেলো বীর উত্তম, বীর প্রতীক, বীর শ্রেষ্ঠ আর প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার হয়েছে বীর অধম। আমি যেসব যোদ্ধা সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন তাদের খেতাবের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

আরো খবর