বারইয়ারহাটে র‌্যাব সদস্যদের গণপিটুনির ঘটনায় গ্রেফতার ১৩

চলমান রিপোর্ট: মিরসরাইয়ের বারইয়ারহাট পৌর বাজারে ‘ডাকাত’ আখ্যা দিয়ে দুই র‌্যাব সদস্য সহ ৩জনকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। গত ২৫ মে সন্ধ্যা ৭ টার সময় র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের সদস্যরা বারইয়ারহাট পৌর বাজারের ফুটওভার ব্রীজের নিচে অভিযান পরিচালনা করার সময় এ ঘটনা ঘটে। আহত র‌্যাব সদস্যরা হলেন, মো. শামীম কাউসার (২৯), মো. মোখলেস (৩৩) ও তাদের সোর্স পারভেজ (২৮)। তাদের মাথা ও শরীরে প্রচুর জখম হয়েছে। আহত র‌্যাব সদস্যদেরকে বারইয়ারহাট জেনারেল হাসপাতাল ও বারইয়ারহাট মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ২৫০ শয্যার ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পর আহত মো. শামীম কাউসার ও মোখলেস এর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় হেলিকপ্টারে করে রাতে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেওয়া হয়। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে। হামলায় নেতৃত্ব দেয় মাদক ব্যবসায়ী, ঘোপাল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর ভূঁইয়া। ইতোমধ্যে দলীয় পদ থেকে তাকে বহিস্কার করেছেন ফেনী জেলা ছাত্রলীগ। র‌্যাবের ওপর হামলার ঘটনায় ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া র‌্যাব সদস্যের ছিনতাই হওয়া দুটি পিস্তলসহ বেশ কিছু মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারি পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আ¬বছার স্বাক্ষরিত একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, র‌্যাব সদস্যদের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত ১৩ জনকে ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলা ও মিরসরাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা অকপটে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে জোররগঞ্জ থানায় মাদক, অস্ত্র ও হামলার ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের করা হবে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, সাইদুর রহমান সাঈদ (৩৩), আনোয়ার হোসেন (৪৫), এসএম শাফায়েত হোসেন (৩৮), মিনহাজুল ইসলাম মিঠু (৩৬), শহিদুল ইসলাম আকাশ (২৫), সোয়েব উদ্দিন আবির (২৯), মো. সাইদুল ইসলাম সুমন (৩০), নাহিদ উদ্দিন (৩৩), মো. আবু সাঈদ (২৮), মো. নাসির উদ্দিন (৩৮), মো. মাঈন উদ্দিন (৩২), ইমাম হোসেন (৩৩), ও ফাহাদ প্রকাশ ফরহাদ (২৬)।
র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া ফাহাদ প্রকাশ ফরহাদের কাছ থেকে ২শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং তার দেয়া তথ্যমতে একটি বস্তা থেকে ৫২ বোতল ফেনসিডিল ও ১ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া র‌্যাব সদস্যের ছিনতাই হওয়া পিস্তলটিও উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসির আল্টিমেটামে চিরকুটসহ মিললো অস্ত্র

বারইয়ার সাদা পোশাকধারী র‌্যাবের ওপর হামলার ঘটনায় ছিনতাই হওয়া র‌্যাবের পিস্তল উদ্ধার হয়েছে। ২৮ মে সকাল ১১টায় অস্ত্র জমা দিতে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেন স্থানীয় জোরারগঞ্জ থানার ওসি। এরপর এক প্রবাসীর টেলিফোনে দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মাত্র ১৬ ঘন্টার মধ্যে ২৯ মে ভোর ৪টায় একটি চিরকুটসহ অস্ত্রটি উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ২৫ মে সন্ধ্যায় উপজেলার বারইয়ারহাট পৌর বাজার এলাকায় র‌্যাবের ওপর হামলার সময় তাদের সাথে থাকা দুটি পিস্তলও লুট হয়। এরপর বৃহস্পতিবার ২৬ মে একটি পিস্তল উদ্ধার করে র‌্যাব-৭। বাকি পিস্তল রবিবার ভোর বেলা বারইয়ারহাট পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের জামালপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মহিউদ্দিন বাবুলের বাড়ির গেইটের পাশে হাতে লেখা একটি চিরকুটসহ রেখে যায়। এরপর এটি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর হোসেন মামুন জানান, শনিবার গভীর রাতে একটি টেলিটক নম্বর থেকে তাঁর কাছে ফোন আসে। এরপর ফোনে অপর প্রান্ত থেকে নিজেকে সাউথ আফ্রিকা প্রবাসি পরিচয় দিয়ে র‌্যাবের লুট হওয়া অস্ত্রটি কোথায় আছে তা জানায়। পরে রবিবার ভোরবেলায় একটি চিরকুটসহ অস্ত্রটি উদ্ধার করা হয়।

কি লেখা ছিলো চিরকুটে:
র‌্যাবের ওপর হামলার ঘটনা সংঘটিত হওয়ার সময় এক র‌্যাব সদস্যের হাতে আঘাত করার পর পিস্তলটি নিচে পড়ে যায়। এরপর সে এটি নিয়ে যায়। তবে পিস্তলে কোন ম্যাগাজিন ছিলো না। অস্ত্রটি পাওয়ার পর ভয়ে আমি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে এটি জমা দিতে পারিনি। এ জন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি।

আরো খবর