তামিমের বিশ্বরেকর্ডের পর বৃষ্টিতে ড্র

ক্রীড়া ডেস্ক

পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পঞ্চম দিনের শেষ সেশন ভেসে গেলো বৃষ্টিতে। আর এতেই ড্র মেনে নিয়েছে দুই দল। ওপেনার তামিম ইকবাল মারকুটে খেলে ভেঙেছেন শতবছরের পুরোনো রেকর্ড, তবে ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় শতকের উদ্দেশ্যে মাঠে নামা হয়নি আর। চা বিরতিতেই ইতি টানতে হলো টেস্ট ম্যাচের।

দ্বিতীয় ইনিংসের শুরু থেকেই এক প্রান্ত আগলে রেখে দ্রুত রান তুলতে থাকেন তামিম। অপর প্রান্তের ওপেনার সাইফ হাসান প্রথম ইনিংসে শূণ্য রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র এক রান করে আউট হন। আর প্রথম ইনিংসে দলের সর্বোচ্চ স্কোরার নাজমুল হোসেন শান্ত আউট রানের খাতা খোলার আগেই। ওদিকে যখন অধিনায়ক মুমিনুল হকের মাত্র ১ রান, তখন সাতটি চার ও দুই ছক্কায় মাত্র ৫৬ বলে ব্যক্তিগত অর্ধশতক তুলে নেন তামিম। তখন দলের রান মাত্র ৫২!

কোনো দলীয় অর্ধশতকে একজন খেলোয়াড়ের সর্বোচ্চ অবদানের বিশ্বরেকর্ড এটি। ২০১৪ সালে ক্রিস গেইল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পোর্ট অব স্পেনে দলীয় ৫৫ রানের সময় ব্যক্তিগত অর্ধশতক স্পর্শ করেন। গেইলের রেকর্ড ছুঁয়েছে ১৩১ বছর আগের অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান জন জেমস লায়ন্সের। ১৮৯০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দলীয় ৫৫ রানের সময় ব্যক্তিগত অর্ধশতক হাঁকিয়েছিলেন তিনি। সকল রেকর্ড আজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষের টেস্টের শেষ দিনে ভাঙলেন তামিম।

চা বিরতিতে যাবার আগে তামিমের ব্যাট থেকে ১০টি চার এবং তিন ছক্কায় এসেছিলো ৭৪ রান। কোনো বাউন্ডারি ছাড়াই ৮৬ বল খেলে ২৩ রানে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। শেষ সেশনে হয়তো এই গতিতে খেললে ব্যক্তিগত শতকও স্পর্শ করে ফেলতেন তামিম। কিন্তু বেরসিক মেঘ আর বৃষ্টিতে শেষ পর্যন্ত অনিবার্য ড্র মেনে নেয় দুই দলই।

ম্যাচসেরা হয়েছেন প্রথম ইনিংসে দ্বিশতক হাঁকানো স্বাগতিকদের অধিনায়ক ওপেনার দিমুঠ করুণারত্নে। আগামী ২৯ এপ্রিল দ্বিতীয় টেস্টে কেন্ডিতে মাঠে নামবে দুই দল।

আরো খবর