ওচমানপুরে ফাঁস দিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যা

top Banner

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মিরসরাইয়ে বিয়ের দেড় মাস পার হওয়ার আগে আত্মহত্যা করেছেন সোনিয়া আক্তার (১৯) নামে এক গৃহবধূ। শনিবার (৬ নভেম্বর) সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার ৫ নং ওচমানপুর ইউনিয়নের মরগাং গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় সোনিয়া আক্তারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে। স্বামীর বাড়ীর লোকজনের নির্যাতনের কারণে সোনিয়া আত্মহত্যা করেছে বলে দাবী করেন তার বড় ভাই।

জানা গেছে, চলতি বছরের গত ২৩ সেপ্টেম্বর কাটাছরা ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাপুর মাচ্ছাপুকুর এলাকার শাহাজাহানের পুত্র শাহ রেজওয়ান রবিনের সাথে ওচমানপুর ইউনিয়নের মরগাং গ্রামের মোঃ জহরুল হকের মেয়ে সোনিয়ার বিয়ে হয়।

নিহত সোনিয়ার বড় ভাই জয়নাল আবেদীন বলেন, গত ২ নভেম্বর স্বামীর বাড়ি থেকে আমাদের বাড়িতে বেড়াতে আসে সোনিয়া। শনিবার সকালে আমার মা ও ছোট বোন বাইরে ছিল। সকাল আনুমানিক ১০ টার দিকে আমার কাছে খবর আসে সোনিয়া ঘরের দরজা বন্ধ করে রেখেছে। পরে দ্রুত ঘরের দরজা ভেঙ্গে দেখি ঘরের তীরের সাথে তার লাশ ঝুলতেছে। এরপর পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

তিনি অভিযোগ করেন, বিয়ের পর কয়েকদিন ভালোভাবে তাদের সংসার চললেও এরপর আমার বোন শুধু বলতো ওরা আমাকে মেরে ফেলবে, তোমাদেরও মেরে ফেলবে। তাঁর স্বামী, স্বামীর বোনেরা নির্যাতন করতো। মুলত তাদের নির্যাতনের কারণে আমার বোন আত্মহত্যার মত কঠিন পথ বেচে নিয়েছে। আমরা তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্ততি নিচ্ছি।


এই বিষয়ে জোরারগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ফারুকী বলেন, সোনিয়া নামের এক গৃবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আজ (রবিবার) সকালে লাশের ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হবে। এই বিষয়ে এখনো থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো খবর